শিরোনামঃ

সৈয়দ আশরাফের বক্তব্য অসত্য, সময় হলে জাতীয় পার্টি এককভাবে নির্বাচনে অংশ নিবে: এরশাদ

সিএইচটি টুডে ডট কম ডেস্ক। জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, “আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আমার বৈঠক নিয়ে সাংবাদিকদের কাছে যে তথ্য দিয়েছেন তা সম্পূর্ণ অসত্য, ভিত্তিহীন ও দুর্ভাগ্যজনক।  তার বক্তব্য আমাকে ও জাতীয় পার্টিকে জাতির সামনে হেয় করেছে। তিনি আরো বলেন জাতীয় পার্টি এককভাবে নির্বাচনে অংম নিবে সময় হলে জাতির কাছে সব পরিস্কার হবে।
এরশাদ বলেন, “আমরা মহাজোটে থাকবো এবং নির্বাচনে অংশ নেবো এ ধরনের কোনো আলোচনা হয়নি। আমরা আশা করবো, তিনি তার বক্তব্য প্রত্যাহার করবেন।”

সোমবার দুপুরে বনানীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এরশাদ এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের খবর গণমাধ্যমে সঠিকভাবে না আসায় এরশাদ এ সংবাদ সম্মেলন ডাকেন।er

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক প্রসঙ্গে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেন, “প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে আলোচনার শুরুতেই আমরা বলেছি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ভাষণে সর্বদলীয় সরকারের প্রস্তাব উত্থাপন এবং তার পরের দিনই সবধরনের সভা-সমাবেশ এমনকি ঘরোয়া সভার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি একটি পরস্পরবিরোধী সিদ্ধান্ত, যা আমরা কোনোভাবেই সমর্থন করতে পারি না। এছাড়া আমরা বৈঠকে বলেছি যে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশে যে ভাষণ দিয়েছেন সে ভাষণে  কিছু কিছু বক্তব্য অস্পষ্ট রয়ে গেছে। বিশেষ করে সর্বদলীয় সরকারের প্রধান কে হবেন, জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, আমি ঘরোয়া সমাবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিইনি। আর সর্বদলীয় সরকার প্রধান হবেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রসঙ্গত, রোববার প্রধানমন্ত্রীর নৈশভোজে অংশ নেন এরশাদের নেতৃত্বে জাতীয় পার্টির ১৫ নেতা। হাসিনা-এরশাদ বৈঠক প্রসঙ্গে পরে ব্রিফিং করেন দুই দলের মহাসচিব সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম ও রুহুল আমিন হাওলাদার। আশরাফ দাবি করেন, আগামী নির্বাচনে এরশাদের জাতীয় পার্টি আওয়ামী লীগের সঙ্গেই থাকবে। বিএনপি নির্বাচনে না এলে জাতীয় পার্টি বিরোধী দলে যাবে।

এসময় সাংবাদিকরা প্রধানমন্ত্রীর অধীনে নির্বাচনে অংশ নেবেন কি না এমন প্রশ্ন করলে এরশাদ বলেন, “আমরা আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেবো।  তবে প্রধানমন্ত্রীর অধীনে নির্বাচন হলে প্রশাসন যেহেতু তার অধীনে থাকবে তাই নির্বাচন সুষ্ঠু হবে কি না তা নিয়ে সংশয় থেকে যায়।”

তিনি আরো বলেন, “সব দল নির্বাচনে অংশ নিলে জাতীয় পার্টি নির্বাচন অংশ নেবে। তার অংশ না নিলে জাতীয় পার্টি নির্বাচনে অংশ নেবে না। আমরা আগেই বলেছি, জাতীয় পার্টি আর কোনো জোটের অধীনে নির্বাচনে অংশ নেবে না। আমরা এককভাবে নির্বাচনে অংশ নেবো।”

সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় পার্টির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী কাজী জাফর আহমদ, মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার, বাণিজ্যমন্ত্রী জিএম কাদের,আ নিসুল ইসলাম মাহমুদ, কাজী ফিরোজ রশীদ, জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন খান, মোস্তফা জামাল হায়দারসহ অন্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

 

Print Friendly, PDF & Email

Share This:

খবরটি 200 বার পঠিত হয়েছে


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*
*

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.

ChtToday DOT COMschliessen
oeffnen