শিরোনামঃ

সেনাবাহিনী নিয়মিত দায়িত্ব ও কর্তব্যর পাশাপাশি এদেশের জনকল্যানে কাজ করে যাচ্ছে : সন্তু লারমা

সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের চেয়ারম্যান জ্যোতিরিন্দ্র বোধি প্রিয় ওরফে সন্তু লারমা বলেছেন, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী নিয়মিত দায়িত্ব ও কর্তব্য পালনের পাশাপাশি এদেশের DSC00813জনকল্যানে কাজ করে যাচ্ছে, এক সময় সেনাবাহিনী জনগনের সাথে সম্পৃক্ত ছিল না আর এখন তাদের দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি জনকল্যানে কাজ করছে।
তিনি আরো বলেন, সেনাবাহিনী এদেশের নাগরিক তাই নি:সন্দেহে এদেশের উন্নয়ন ও রাষ্ট্র গঠনে তাদের ভুমিকা অনস্বীকার্য তাই এদেশের নাগরিক হিসেবে তাদের ভিতটাকে আরো গভীরে নিয়ে যাওয়া যথাযথ হবে বলে আমি মনে করি। এদেশের শিক্ষিত সমাজ ও সাধারন মানুষের কাছে সেনাবাহিনীর ভুমিকা প্রশংসনীয়।
তিনি আজ বুধবার সকালে রাঙামাটিতে সেনাবাহিনী পরিচালিত কম্পিউটার ও সেলাই মেশিন প্রশিক্ষার্নীদের সার্টিফিকেট বিতরন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য এসব কথা বলেন।
রাঙামাটি সদর জোন কমান্ডার লে: কর্নেল মানিক শামস উদ্দিন মোহাম্মদ মাইন পিএসসির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন রাঙামাটি রিজিয়ন কমান্ডার বিগ্রেডিয়ার জেনারেল রিদওয়ান-আল-মাহমুদ এনডিসি এএফডব্লিউসি পিএসসি, ও ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মোস্তফা জামান।
অনুষ্ঠানে এসময় রাঙামাটির পুলিশ সুপার সাইয়েদ তারিক, রাঙামাটি পৌরসভার মেয়র সাইফুল ইসলাম ভুট্রো, সদর উপজেলার চেয়ারম্যান অরুন কান্তি চাকমাসহ বিশিষ্ট ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।
দক্ষ মানব সম্পদ- সমৃদ্ধ দেশ এই শ্লোগানে রাঙামাটি সদর জোনের আওতায় কাউখালী উপজেলার বেকার যুবক যুবতী ও স্কুল কলেজের প্রায় ২৫০ প্রশিক্ষার্থীদের মাঝে কম্পিউটার প্রশিক্ষন ও সেলাই প্রশিক্ষনের সার্টিফিকেট তুলে দেয়া হয়।
সার্টিফিকেট বিতরন অনুষ্ঠানে সন্তু লারমা আরো বলেন,পার্বত্য চট্টগ্রামে বিগত সময়ে যে নির্মম বাস্তবতা ছিল এবং আমরা যে সার্বিক পরিস্থিতির মুখোমুখি ছিলাম বা আছি সে দিক থেকে সেনাবাহিনীর আজকে প্রশিক্ষন ও উন্নয়ন কর্মকান্ডের ফলে তাদের প্রতি যে সাধারন জনগনের যে সম্মানবোধ, ভালোবাসা সেটি আরো বৃদ্ধি পাবে। পারস্পরিক শ্রদ্ধ ভালোবাসা থাকলে এখানকার বাস্তবতা আরো দুরীভুত হবে।
সন্তু লারমা বলেন, আমি রাজনৈতিক দলের পাশাপাশি পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে সেনাবাহিনীর কর্মকর্তাদের কাছে আমার অভিব্যক্তি ব্যক্ত করেছি। এদেশের জনগনের অধিকার প্রতিষ্ঠায় সেনাবাহিনীর ভুমিকা রয়েছে।
সন্তু লারমা আরো বলেন, পার্বত্য অঞ্চলে শান্তি সম্প্রীতি উন্নয়নের ক্ষেত্রে আমাদের একে অপরকে মানুষ হিসেবে প্রাধান্য দিয়ে বসবাস করতে হবে এবং আমরা সেই চেষ্টা করছি।
অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের উদ্দ্যেশে সন্তু লারমা বলেন, মানুষের জীবধারার যে সংগ্রাম তাতে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির আমাদের অনেকদুর নিয়ে গেছে। বর্তমান সমাজ ব্যবস্থায় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ছাড়া উন্নয়ন কল্পনা করা যায় না তাই শিক্ষার্থীদের অর্জিত জ্ঞান যথাযথভাবে কাজে লাগাতে হবে।

Print Friendly, PDF & Email

Share This:

খবরটি 1,299 বার পঠিত হয়েছে


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*
*

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.

ChtToday DOT COMschliessen
oeffnen